গোপালগঞ্জ বিহারের গোপালগঞ্জে চার বছরের এক শিশুকে কামড়ে মারা গেছে একটি কোবরা সাপ। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক আলোচনা হয়েছিল। মানুষ কুসংস্কারের মত কথা বলতে থাকে। কেউ ঈশ্বরের শক্তিতে বিশ্বাসী আবার কেউ। এখন নিশ্চিত হওয়া যাবে শিশুটিকে কামড়ে সাপটি কীভাবে মারা গেল? শিশুটির রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে তদন্ত করা হচ্ছে। রিপোর্ট এখনো আসেনি। রক্তের নমুনার রিপোর্ট আসার পর এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।

এখানে সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ সানাউল মোস্তফা বলেন, কোবরা সাপটি চার বছরের শিশুটিকে কামড়ে মারা গেছে, ওই সাপটি খুবই বিপজ্জনক ও বিষাক্ত ছিল। কোবরা সাপ কাউকে কামড়ালে চিকিৎসা না পেয়ে রোগীর বেঁচে থাকা কঠিন। শুধুমাত্র ‘অ্যান্টি-স্ন্যাক ভেনম’ ইনজেকশন আছে, যা বিষধর সাপের বিষ মেরে ফেলার ক্ষমতা রাখে। শিশুটিকে সাপে কামড়ালে পরিবারের লোকজন তাকে সদর হাসপাতালের জরুরি ওয়ার্ডে নিয়ে যায়। এখানে চিকিৎসা শুরু হয় এবং শিশুটির জীবন রক্ষা পায়। এর মধ্যে দৈবশক্তির কোনো কথা নেই।

  রোহিণী সেক্টর-৫ বিল্ডিংয়ে আগুন, নিচতলা থেকে উদ্ধার এক ব্যক্তির মৃতদেহ, উদ্ধার আট জনকে

আরও পড়ুন- বিহারের খবর: ছোটবেলার প্রেম আমার ভুল… বিয়ের ৮ দিন পর প্রেমিকের কথা মনে পড়ল স্ত্রী, রাস্তার মাঝখানে ‘গুচ্ছ’ খেয়ে ফেললেন স্বামী

পুরো ব্যাপারটা কি,

জানিয়ে দেওয়া যাক, বারাউলি থানা এলাকার মাধোপুর গ্রামের বাসিন্দা রোহিত কুমারের চার বছরের ছেলে অনুজ কুমার কুচায়কোট থানা এলাকার সাসামুসা খাজুরী টোলায় তাঁর মামার বাড়িতে এসেছিলেন। এই সপ্তাহে বুধবার সন্ধ্যায় অনুজ দরজার সামনে বাচ্চাদের সাথে খেলছিল। খেলার সময় খামার থেকে আসা কোবরা সাপ শিশুটির পায়ে কামড় দেয়। এর পর কয়েক মিনিটের মধ্যে সাপটি মারা যায়। স্বজনরা এসে দেখেন সাপটি মারা গেছে। এরপর শিশু ও সাপকে নিয়ে সদর হাসপাতালে পৌঁছায় পরিবার।

আরও পড়ুন- এবিপি বিহারের অপারেশন হাসপাতাল: রাতে ভুলেও নওয়াদা সদর হাসপাতালে আসবেন না, চিকিৎসকরা নিখোঁজ, বাকিদের জন্য জিজ্ঞাসা করবেন না

  দেরাদুন থেকে পিথোরাগড়গামী বাসের ব্রেক ব্যর্থ, চালক বাঁচিয়েছেন ৪২ জন যাত্রীর প্রাণ!

,



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published.