বান্ধবীর সঙ্গে স্বামীকে দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে দুজনকে চড় মারলেন স্ত্রী

2 Views


বাগপত সংবাদঃ উত্তরপ্রদেশের বাগপতে, মহিষ কেনা নিয়ে থানায় পৌঁছানো মহিষের মালিক ও তার বান্ধবীকে পুলিশের সামনে অপমান করা হয়েছে। মহিষের মালিকের স্ত্রী তার বান্ধবীকে তার স্বামীর সাথে থানায় দেখতে পেয়ে মেজাজ হারিয়ে তাকে চড় মারেন। পুলিশ তাদের দুজনকে থানা থেকে বের করে দিলে ওই নারী তাদের শুধু বাইরে মারধরই করেননি, চুল আঁচড়ে ধরে টেনে নিয়ে যান। কেউ কেউ দুটি আলাদাভাবে করেছেন।

পুরো ব্যাপারটা কি?
ঘটনাটি দোঘাট থানা এলাকার। প্রকৃতপক্ষে, বাগপত জেলার রামলা থানার অন্তর্গত একটি গ্রামের বাসিন্দা এক যুবক তার মহিষ বিক্রির জন্য পার্শ্ববর্তী ইদ্রিশপুর গ্রামের এক যুবকের কাছে দিয়েছিলেন। ইদ্রিশপুর গ্রামের এক যুবক তার নিজ গ্রামের এক যুবকের কাছে একটি মহিষ বিক্রি করেছেন। বাকি টাকা নিতে মহিষের মালিক পৌঁছালে তিনি টাকা দিতে অস্বীকার করেন। মহিষের মালিকের সঙ্গে তার বান্ধবীও ছিল। ঝগড়া বাড়লে মহিষ কেনা যুবকরা চুরির বিষয়টি পুলিশকে জানায়, পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

  প্রগতি ময়দান টানেল প্রতি রবিবার শুধু পথচারীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে, এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে

স্ত্রী বান্ধবীকে মারধর
পুলিশ মহিষের মালিক ও তার বান্ধবীকে দোঘাট থানায় নিয়ে আসে।কেউ মহিষ মালিকের স্ত্রীকে এই বিবাদের কথা জানায়, এরপর মহিষের মালিকের স্ত্রী বুধনা থানা এলাকা থেকে তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দোঘাট থানায় পৌঁছায়। স্বামীর সঙ্গে প্রেমিকাকে দেখে থাপ্পড় দিয়ে মারতে শুরু করে। মহিলা পুলিশ সদস্যরা হস্তক্ষেপ করে দুজনকে আলাদা করে দিলে মহিষের মালিকের স্ত্রী মেজাজ হারিয়ে ফেলেন।

তা দেখে পুলিশ তার স্বামী ও বান্ধবীকে থানা থেকে বের করে দেয়।মহিষের মালিকের স্ত্রী বান্ধবীকে থানার বাইরে ধরে তার চুল ধরে থাপ্পড় দিয়ে মারতে থাকে। পুলিশের সহায়তায় লোকজন দুজনকে মুক্ত করে আলাদা করে দেয়। দোঘাট থানার পরিদর্শক জনক সিং চৌহান জানান, মহিষের মালিক যুবকের সঙ্গে তার স্ত্রীর বিরোধ চলছে, অন্যদিকে মহিষ বিক্রির টাকা নিয়ে ইদ্রিশপুর গ্রামের যুবকের সঙ্গে মহিষ মালিকের বিরোধ চলছিল যা মিটে গেছে।

  গোন্ডায় কোটদারের স্বেচ্ছাচারিতা প্রকাশ্যে এল, রেশন কম দেওয়ার অভিযোগ জনতার বিরুদ্ধে, জেনে নিন পুরো ঘটনা

এটিও পড়ুন:-

বস্তিতে দুর্ঘটনা: বস্তিতে বাইকে পিকআপের ধাক্কায় তিন ভাইয়ের মৃত্যু, পরিবারের হাহাকার

ইউপি বোর্ডের ফলাফল 2022: আগ্রা জেলের বন্দীরা অভিষেক বচ্চনের চলচ্চিত্রের গল্পকে সত্য করে তুলেছে, ইউপি বোর্ড পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে

,



Source link

Leave a Comment