হাইলাইট

কাটিহারে সাপের কামড়ের পর পরিবারের সদস্যরা সঙ্গে সঙ্গে ৫ বছরের মেয়ে তামান্না খাতুনকে হাসপাতালে নিয়ে যান।
উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ হাসপাতালে মেয়েটির চিকিৎসা শুরু হলেও তাকে বাঁচানো যায়নি।

কাটিহার। সোয়ান মাসে সাপ দেখা বিশেষ বলে বিবেচিত হয়। ধর্মীয় কিংবদন্তীতে এর সাথে সম্পর্কিত অনেক গল্প রয়েছে। কিন্তু আজ আমরা কাটিহার থেকে যে গল্পটি আপনাদের বলছি তা শুধু দুঃখজনকই নয়, মর্মান্তিকও বটে।

কাটিহারের একটি বাড়ির লোকজন গত কয়েকদিন ধরে ৪০টি সাপের মধ্যে বসবাস করছিলেন। আর আশ্চর্যের বিষয় হলো তিনি নিজেও বিষয়টি জানতেন না। ঘটনাটি বারসোই ব্লকের করণপুর পঞ্চায়েতের বিজুরিয়া গ্রামের। আফতাবের ৫ বছরের মেয়ে তামান্না খাতুনকে সাপে কামড়ালে বাড়িতে ৪০টি সাপের উপস্থিতি জানা যায়। বাংলার কাছাকাছি হওয়ায় মেয়েটিকে উত্তর দিনাজপুর রায়গঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলেও মেয়েটির মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনার পর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এই আগাছার মাঝে সাপটিকে খুঁজতে ডাকা হয় সর্পপ্রেমিককে। সর্পপ্রেমী সাপটিকে খুঁজতে শুরু করলে বাড়িতে রাখা বাক্সের মতো পাত্রে একসঙ্গে ৪০টি সাপ পাওয়া যায়। গ্রামের প্রবীণ ঝা বলেন, মেয়েটির মৃত্যুর ঘটনা খুবই দুঃখজনক। কিভাবে এই পরিবার 40 টি সাপ নিয়ে একসাথে বসবাস করছিল তাও একটি অলৌকিক ঘটনা। তারা জানায়, এই সব সাপকে উদ্ধার করে পাশের জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

Tags: বিহারের খবর, কাটিহার নিউজ, স্নেক রেসকিউ, ট্রেন্ডিং খবর

,



Source link

Previous articleস্ত্রী আনুশকা ও মেয়ে ভামিকার সঙ্গে ছুটি উদযাপন করছেন বিরাট, ভক্তদের জন্য স্মরণীয় ভিডিও শেয়ার করুন
Next articleওয়ান টিপ ওয়ান হ্যান্ড: মোহাম্মদ কাইফকে একসাথেও আউট করতে পারলেন না, আপনি কি এই দ্বন্দ্বমূলক ভিডিওটি দেখেছেন?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here