হাইলাইট

জ্বরে ভারী খাবারের পরিবর্তে ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন।
অসুস্থতার সময় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা খুবই দুর্বল হয়ে পড়ে।

ফ্লুতে খাবার উপশম: ঠান্ডা এবং ফ্লু একটি সাধারণ রোগ যা শরীরের শ্বাসযন্ত্রকে প্রভাবিত করে। ফ্লুতে গলা ব্যথা, কাশি, হাঁচি এবং জ্বর হয়, যা দুই থেকে তিন দিন ওঠানামা করে। সাধারণত ফ্লুর কারণে শরীরে ক্লান্তি ও দুর্বলতা অনুভূত হয়, যার কারণে হৃৎপিণ্ড কিছু খেতে চায় না। কিন্তু শরীরে শক্তি যোগাতে এবং ফ্লুর প্রভাব কমাতে খাবার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জ্বরে ভারী খাবারের পরিবর্তে ভিটামিন ও মিনারেল যুক্ত খাবার গ্রহণ করলে বেশি উপকার পাওয়া যায়। ফ্লুতে তরল খাবার গ্রহণ করলেও আরাম পাওয়া যায়। যার মধ্যে স্যুপ, জুস এবং এনার্জি ড্রিংকস অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে। চলুন জেনে নেওয়া যাক ফ্লুর সময় এমন কোন খাবার, যা খেলে তাৎক্ষণিক উপশম পাওয়া যাবে।

ঝোল
ঝোল মানে ঝোল, যা তৈরি হয় সবজি ও মুরগির মাংস থেকে। হেলথলাইন অনুযায়ী ফ্লুর সময় গলা ব্যথা, সর্দি এবং দুর্বলতা অনুভূত হয়। এমন পরিস্থিতিতে যতটা সম্ভব তরল খাবার গ্রহণ করা উচিত। ফ্লুতে ঝোল খুবই উপকারী। এতে প্রিয় সবজি যেমন বাঁধাকপি, টমেটো, বিট ও ব্রকলি ব্যবহার করা যেতে পারে।

চিকেন স্যুপ
ফ্লুতে সবাই গরম স্যুপ খেতে পছন্দ করে। বিশেষ করে চিকেন স্যুপ, যা জিঙ্ক এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ। শরীরকে হাইড্রেট করতে স্যুপের ব্যবহার উপকারী। যারা মুরগির মাংস খান না তারা স্যুপে গাজর, সেলারি, পেঁয়াজ এবং বিটরুটের মতো সবজি অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। এতে শরীর ভিটামিন এ, ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাবে।

আরও পড়ুন: জেনে নিন কেন জ্বরে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যায়

রসুন
রসুন ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। ফ্লু বা জ্বরে রসুন খাওয়া উপকারী। রসুন কোনো থালায় রেখে খাওয়ার দরকার নেই। এটি কাঁচা খেলে আরও স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যায়। ফ্লু হলে এই তিনটি রসুনের কুঁড়ির মধ্যে দুটি খাওয়া যেতে পারে।

দই
দই প্রোবায়োটিকের সবচেয়ে ভালো উৎস। প্রোবায়োটিকের সাহায্যে সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করা সহজ হয়। চিনির পরিবর্তে লবণ দিয়ে দই খেলে বেশি উপকার পাবেন।

আরও পড়ুন: আয়ুর্বেদের এই ঔষুধে ওষুধ না খেয়ে জ্বর চলে যাবে।

ভিটামিন সি
অসুস্থতার সময় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা খুবই দুর্বল হয়ে পড়ে। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি যুক্ত ফলমূল ও শাকসবজি খেতে হবে। যার মধ্যে লাল বা সবুজ ক্যাপসিকাম, কমলা, আঙ্গুর, কিউই এবং ব্রকলি খাদ্যতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত।

ট্যাগ: ফ্লু, খাদ্য, স্বাস্থ্য, জীবনধারা

,



Source link

Previous articleলিগ অফ লিজেন্ডসের দ্বিতীয় মরসুম এখন ওমানের পরিবর্তে ভারতে আয়োজিত হবে, আয়োজকরা নিশ্চিত করেছেন
Next articleফাস্ট্র্যাকের রিফ্লেক্স প্লে স্মার্টওয়াচ লঞ্চ হল, 7 দিনের ব্যাটারি লাইফ সহ দুই হাজার টাকা ছাড়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here